10 Most Important SEO Tips in Bangla for Bloggers | SEO Tips

how to rank in google,seo tutorial for beginners,seo for beginners,blogger seo best tips for increasing visitors,blogger seo tips in hindi,blogger seo tips and tricks in hindi,seo for bloggers,blogger blogspot seo tutorial for beginners,seo for blogger,blogger seo in hindi,seo tutorial for beginners step by step,youtube video seo in bangla,seo for blogger in hindi,blogger seo,blogger seo tips,blogger seo tips and tricks for increasing visitors in hindi
10 Most Important SEO Tips in Bangla for Bloggers | SEO Tips 




মরা সবাই ব্লগে লেখা প্রকাশ করে টাকা আয় করতে চাই। প্রাথমিকভাবে সবাই ব্লগে Google Adsense যোগ করে টাকা আয় করে। শুধু ব্লগে AdSense যোগ করেই টাকা আয় করা সম্ভব না। তার জন্য ব্লগে পর্যাপ্ত পরিমান দর্শকের আনা-গোনা থাকতে হবে। ব্লগে যত বেশী দর্শক বাড়বে, ততই টাকা আয় হবে। 


What is SEO? বা SEO কাকে বলে?  


ব্লগে দর্শক বৃদ্ধি বা আর্টিক্যাল রেঙ্ক করার জন্য সবাই SEO করে থাকে। SEO যার পূর্ণরূপ হচ্ছে (Search Engine Optimazation). SEO এমন একটি পদ্ধতি যার মাধ্যমে যে কোন সাইট/ব্লগকে Search Engine এ রেঙ্কিং এ নিয়ে আসা যায়। আপনি যখন আপনার আর্টিক্যাল Google Search Engine এ প্রথম পেজে নিয়ে আসবেন। তখন আপনার ব্লগে বা আর্টিক্যালে দর্শক বৃদ্ধি হতে শুরু করবে।  

      

10 Most Important SEO Tips in Bangla for Bloggers


১ ।  কিওয়ার্ড রিসার্চ করুনঃ- 


       - আপনি যখন ব্লগে লেখা প্রকাশ করবেন। তার আগে সেই লেখা/আর্টিকেলের কিওয়ার্ড রিসার্স করুন। Google Keyword Planner Tools টি ফ্রীতে ব্যবহার করতে পারবেন। এমন একটি কিওয়ার্ড বাছাই করুন, সেখানে দর্শকের সংখ্যা/ Volume বেশী। নতুন ব্লগ হলে কিওয়ার্ডের জন্য সিমাবদ্ধ বা কম সংখ্যার /Volume বাছাই করুন। যাতে নতুন অবস্থায় রেঙ্কিং করতে সুবিধা হয়। একটি সঠিক কিওয়ার্ড ব্লগিং ক্যারিয়ার বদলে দিতে পারে। 


২ ।  দীর্ঘ কিওয়ার্ড যুক্ত শিরোনাম ব্যবহার করুনঃ- 


        - আর্টিক্যালের শিরোনাম যেটা SEO এর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর্টিক্যালের শিরোনামটি সঠিকভাবে বাচাই করুন। যাতে আর্টিক্যালের শিরোনামটি দর্শকের দৃষ্টি আকর্ষন করতে পারে। সেই সাথে আর্টিক্যালের শিরোনামে মূল কিওয়ার্ডটি যুক্ত করুন। আর্টিক্যালে উপ-শিরোনাম ব্যবহারের পাশাপাশি তার মধ্যেও মূল কিওয়ার্ডটি যংযুক্ত করুন। আর্টিক্যালের শিরোনামটি ৫০-৬০ অক্ষরের মধ্যে সিমাবদ্ধ রাখুন। একটি আর্টিক্যালের শিরোনামই লেখার উদ্দেশ্য বলে দেয়। 


৩ ।  আর্টিক্যালের URL Link Format ব্যবহার করুনঃ- 



        - আর্টিক্যালের URL Link Google কে নির্দিষ্ট কিওয়ার্ডের Results খুজতে সহয়তা করে। URL Link এ আর্টিক্যালের মূল কিওয়ার্ডটি সংযুক্ত করন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। URL Link এ খুব সংক্ষিপ্ত রূপে কিওয়ার্ডটি যুক্ত করার চেষ্টা করুন। এর মাধ্যমে আপনার লেখা বা আর্টিক্যালটি Google Search Engine এর খুজে পেতে সুবিধা হবে। বেশিরভাগ ব্লগাররাই এই বিষয়ে তেমন গুরুত্ব দেয় না।  


৪ ।  আর্টিক্যালের Search Description Format ব্যবহার করুনঃ- 



       - আর্টিক্যালের Search Description ঠিক একইভাবে SEO এ-তে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রাখে। Search Description Format এ ১৫০ অক্ষরের সংক্ষিপ্ত ধারনা প্রকাশ করুন। এতে অবশ্যই আর্টিক্যালের মূল কিওয়ার্ডটি সংযুক্ত করতে ভুলবেন না। Search Description Format টি Search Engine এ আর্টিক্যালগুলো রেঙ্কিং এ  নিয়ে আসতে সাহায্য করে। ঠিক একইভাবে আর্টিক্যালের Labels এ মূল কিওয়ার্ডটি সংযুক্ত করলে আরও ভালো Results পাবেন।  


৫ । আর্টিক্যালে ছবি/ভিডিও ব্যবহার করুনঃ-



       - আর্টিক্যালে ছবি বা ভিডিও ব্যবহার করলে লেখার মান বৃদ্ধি পায়। এতে দর্শকের পড়তে আগ্রহ সৃষ্টি হয়। ছবিতে PropertiesTagCaptions ব্যবহার করুন। Search Engine এ Search দিলে আর্টিক্যালের সাথে অনেক ছবি ও ভিডিও চলে আসে। ছবির মাধ্যমে দর্শক ক্লিক করে আর্টিক্যালে প্রবেশ করে। এর জন্য ছবির মধ্যে TagCaptions ব্যবহার SEO এর জন্য খুবই জরুরী। 


৬ ।  আর্টিক্যালের মধ্যে সংশ্লিষ্ট লিঙ্ক ব্যবহার করুনঃ- 



        - আর্টিকালের মাঝে নিজের ব্লগের সংশ্লিষ্ট পুরাতন পোস্ট বা আর্টক্যালের লিঙ্ক জুড়ে দিন। এতে করে দর্শক একটি আর্টিক্যালের মাধ্যমে আপনার ব্লগে আরও পোস্ট বা আর্টিক্যাল পড়ার জন্য উৎসাহ পায়। আবার আপনার বন্ধুদের বা অন্যকারো ব্লগের লিঙ্ক No-Follow Tag করে বসিয়ে দিতে পারেন। তবে এ ধরনের লিঙ্ক একটি আর্টিক্যালে দুটির বেশী না দেওয়া উত্তম। নিজের ব্লগের লিঙ্ক প্রয়োজনমত যত ইচ্ছা বসাতে পারেন। এই দুটি লিঙ্ক ব্যবহার SEO এর নিয়মের মধ্যেই পড়ে। 


৭ । আর্টিক্যালের জন্য BackLink সংগ্রহ করুনঃ- 


      - আর্টিক্যাল রেঙ্ক করার জন্য ব্লগে ভালো লেখার পাশাপাশি মাঝে মাঝে BackLinks সংগ্রহ করার প্রয়োজন পড়ে। একই কিওয়ার্ডের প্রতিদ্বন্দ্বী বেশি হওয়ার কারনে BackLink এর প্রয়োজন পড়ে। সে ক্ষেত্রে বন্ধুদের ব্লগ কিংবা অন্যকোন ব্লগ থেকেই BackLink সংগ্রহ করতে পারেন। এর জন্য নিজের ব্লগে Guest Blog বা অতিথি লেখকদের আমন্ত্রনের ব্যবস্থা করুন। এবং নিজেও অন্যের ব্লগে লেখা জমা দিন। BackLink সংগ্রহ করার জন্য Guest Blogging এর কোন বিকল্প নেই। 


৮ ।  পুরাতন আর্টিক্যালগুলো হালনাগাদ করুনঃ- 


        - যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ব্লগের পুরাতন আর্টিক্যালগুলো হালনাগাদ করতে থাকুন। এতে করে ব্লগের আর্টিক্যালগুলো Search Result এ রেঙ্কিং হারাবে না। দর্শক হারানোর সম্ভাবনাও কম থাকে। তাছাড়া একজন ব্লগারের সবসময় নিজেকে Update রাখা জরুরী। ইন্টারনেট দুনিয়ার প্রতিদিনই সব কিছু হালনাগাদ হচ্ছে। 


৯ ।  ব্লগে কমেন্ট সেকশন ব্যবহার করুনঃ- 


       - জ্বী আপনি ঠিকই পড়েছেন। প্রায় ব্লগাররাই কমেন্ট সেকশনকে গুরুত্ব দেয় না। কিন্তু আপনি কি জানেন, কমেন্ট সেকশনেও আর্টিক্যালের কিওয়ার্ডগুলো প্রকাশ হয়ে থাকে, এবং সেই কমেন্টগুলো আর্টিক্যালের মধ্যেই অন্তর্ভূক্ত করা হয়। অনেকেই কমেন্ট সেকশন Spam এর জন্য বন্ধ করে রাখে। আপনি চাইলে সঠিক নিয়মে তা চালু করতে পারেন।  


১০ ।  ব্লগের আর্টিক্যালগুলো মার্কেটিং করুনঃ- 


         - ব্লগে যখন নতুন আর্টিক্যাল প্রকাশ করবেন, সাথে সাথে তা মার্কেটিং করা শুরু করে দিন। তার জন্য ব্লগে আসা দর্শকের ই-মেইল কালেক্ট করুন। ই-লেইল লিস্ট মোতাবেক তাদেরদের আগাম ব্লগের নতুন আর্টিক্যাল সম্পর্কে অবগত করুন। বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে লিঙ্ক ছড়িয়ে দিন। এতে করে ব্লগে দর্শকের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। তাছাড়া Google Algorithm সোশ্যাল মিডিয়া থেকে আসা দর্শকদের অনুসরণ করে থাকে। এতে করেও একটি আর্টিক্যাল Search Result এ রেঙ্কিং আসার সম্ভবনা বেড়ে যায়। 

আমার অনেক আর্টিক্যাল আসে, সেখানে কোন প্রকার BackLink ছাড়াই Google Top পেজ রেঙ্কিং করছে। সেই সব আর্টিক্যালগুলো ভালমানের লেখার চেষ্টা করেছি। নতুন Google Algorithm অনুযায়ী BackLink এ কোন প্রকার প্রভাব পড়ে না। তবুও এই পদ্ধতি এখনো অনেক ক্ষেত্রে কাজ করে। ব্লগের আর্টিক্যাল Search Result রেঙ্ক করার জন্য আর্টিক্যালে ভালো মানের লেখা দর্শককে উপহার দিতে হবে। ব্লগে ভালো মানের লেখা প্রকাশ করাই SEO এর বড় পদ্ধতি ও সহজ সমাধান। 

SEO এর পদ্ধতির বিষয়ে কোন প্রকার প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন। আমার আর্টিক্যালটি ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।  

0 Comments